Techzoombd

সেরা ৫টি ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ সম্পর্কে জেনে নিন

ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ

বর্তমান সময়ে সব কিছু অনলাইন নির্ভর হয়েছে কালের প্ররিক্রমায়। মানুষ এখন সরাসরি মিটিং করার পরিবর্তে বিভিন্ন প্রযুক্তি ব্যবহার করে সেই কাজ করে চলেছে । আর এই সব অনলাইন মিটিং করতে হলে ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ ছাড়া কোনো উপায় নেয় ।

এই অ্যাপগুলো আমাদের জীবনকে অনেক সহজ করে দিয়েছে । আরও বেশি হয়েছে গতিশীল । আগে একটা মিটিং করতে অনেক দূর থেকে আসা লাগত । আর এখন ঘরে বসেই এই কাজটি করতে পারেন ।

তাই জানতে হবে আমাদের মোবাইলের কোন কোন ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ আছে বা ইন্সটল দিতে হবে । ভিডিও মিটিং করতে হলে ।

সেরা ৫টি ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ

Zoom Meetings

গুগল প্লে স্টোরে Zoom meetings লিখে সার্চ দিলেয় চলে আসবে । Zoom cloud meetings নামে । এই অ্যাপ সাধারণ ইউজার থেকে এন্টারপ্রাইজ সকলের জন্য প্রযোজ্য । এখানে আপনি ফ্রিতে একটা অ্যাকাউন্ট তৈরি করে ব্যবহার করতে পারবেন ।

তবে ফ্রি ভার্সনে কিছু সীমাবদ্ধতা আছে । যেমন ১০০ জনের বেশি একই সাথে মিটিং করতে পারবে না । আর ফ্রিতে সময়ের লিমিট ৪০ মিনিট থাকে । ৪০ মিনিট পরে অটোমেটিকভাবে এই মিটিং কেটে যায় ।

তার পর আবার নতুন করে শুরু করা যায় । ফ্রিতে আপনি আপনার স্কিন অন্যদের জন্য শেয়ার করতে পারবেন । ফাইল রেকর্ড করতে পারবেন । এছাড়া যদি পেইড কোনো প্যাকেজ ব্যবহার করেন তাহলে সেই প্যাকেজের যত সুবিধা আছে তার সব ব্যবহার করতে পারবেন ।

শুধু মোবাইলে নয় কম্পিউটার সফটওয়্যার ও ওয়েব সাইট ব্যবহার করে এই সুবিধাগুলো নিতে পারবেন । এখন ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ এর মধ্যে অন্যতম এটি ।

ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ Zoom Meeting কী? কীভাবে কাজ করে?

Google meet

গুগলের অন্যতম সার্ভিস গুগল মিট । এটি ব্যবহার করার জন্য আপনাকে অবশ্যই জিমেইল অ্যাকাউন্ট লাগবে । আপনার যদি কেউ মিটিং এর লিংক দেয় তাহলে খুব সহজে মিটিং এ জয়েন্ট করতে পারবেন ।

এছাড়া আপনিও মিটিং তৈরি করে অন্যদের সাথে মিটিং করতে পারেন । জুম মিটিং এ যে কেউ মিটিং এ প্রবেশ করতে পারে কিন্তু গুগল মিটে পারমিশন নেওয়ার প্রয়োজন পড়ে । যে মিটিং তৈরি করেছে সে এটি নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন ।

আপনি এখানে ফ্রিতে সবোর্চ ২৫০ জন একই সাথে মিটিং করতে পারবেন । এছাড়া এটেনশন দেওয়ার জন্য হাত উঠানোর সিস্টেম আছে ।  এছাড়া মিটিং গুলো সেইফ করা যায় ভিডিও আকারে ।

Microsoft Teams

মাইক্রোসফট কোম্পানির অন্যতম সেবা মাইক্রোসফট টিম । এই অ্যাপে সুবিধা নিতে হলে আপনার তাদের মাইক্রোসফট ৩৬৫ প্যাকেজে ক্রয় করা থাকতে হবে ।এখানে অন্য অ্যাপের মত স্কিন শেয়ার করা ও ভিডিও ব্যাকআপ নেওয়া যায় ।

পেইড ভাবে ব্যবহার করলে আপনি সর্বোচ্চ ১০০০০ জন নিয়ে মিটিং করতে পারবেন। ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ গুলোর মধ্যে অন্যতম ।

Messenger

মেসেঞ্জারে একই ভাবে অল্প কিছু সুবিধা নিয়ে এসেছে মেসেঞ্জার । এখানে অল্প কিছু মানুষ নিয়ে ভিডিও  কলে কথা বলা বা মিটিং করা যায় । আপনি রুম তৈরি করে সেখানে অন্যদের ইনভাইট করে মিটিং করতে পারেন ।

messenger screen share

সেখানে নিজের স্কিন শেয়ার ও হাত ওঠানো যায় । কিছু বলার জন্য । এছাড়া একই সাথে অনেক মানুষ একই ভিডিও দেখা যায় । গেম খেলা যায় ।

Skype

ভিডিও কলের বিভিন্ন অ্যাপ ব্যবহার করছে আর স্কাইপের নাম শোনে নি এমন মানুষ পাওয়া যাবে না । স্কাইপ অনেক আগে থেকে তার সেবা দিয়ে যাচ্ছে ।

আগে সর্বোচ্চ ২৫ জন এক সাথে মিটিং করতে সুবিধা দিয়ে থাকলেও প্রতিযোগিতার মাঠে এখন ৫০ জনকে একই সাথে মিটিং করতে দিচ্ছে । আপনি মোবাইল কম্পিউটার ব্যবহার করে এই সুবিধা নিতে পারেন ।

ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ

আপনি চাইলেই এই অ্যাপগুলো ব্যবহার করতে পারবেন মোবাইল, কম্পিউটার ওয়েবসাইট বা এক্সটেশন হিসেবে । এই অ্যাপগুলো আমাদের বর্তমান সময়ে মিটিং গুলো অনেক সহজ করে দিয়েছে । যা আমাদের জীবনকে আরও প্রাণবন্ত করেছে ।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on pinterest
Pinterest
Share on telegram
Telegram