Techzoombd

রিয়েলমি ফোনের সেটিং সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিন পার্ট(১)

রিয়েলমি ফোনের সেটিং

বর্তমানে জনপ্রিয় চাইনিজ ফোনের মধ্যে অন্যতম রিয়েলমি । তাদের ফোনগুলো কম দামে ভালো পন্য দেওয়ার কারণে বাংলাদেশের মার্কেটে অল্প সময়ে অধিক জনপ্রিয়তা পেয়েছে । তাই রিয়েলমি ফোনের সেটিং সম্পর্কে বিস্তারিত জানব ।

সকল সেটিং এক এক করে জানানো হবে। মেইনগুলো ১,২,৩….. এই ভাবে আর শাখাগুলো ক, খ,গ…. এইভাবে দেওয়া হবে। আশা করা যায় এই লেখাটা পড়লে আর কোনো কিছু জানা লাগবে না রিয়েলমি ফোনের সেটিং সম্পর্কে ।

রিয়েলমি ফোনের সেটিং

১) Sign in

রিয়েলমি ফোনের সার্ভিস নিতে একটা রিয়েলমি অ্যাকাউন্ট করতে পারেন । এখানে ফোন নম্বর, ফেসবুক ও জিমেইল দিয়ে অ্যাকাউন্ট করা যায় । এইটা রিয়েলমি ফোনের সেটিং এ প্রথমে আছে ।

২) SIM card & mobile data

এই সেটিং এর আন্ডারে অনেক কাজ আছে ।  সকল কাজ সিম সংক্রান্ত । প্রথমে আছে (ক) SIM INFO & SETTINGS এখানে দুইটা সিম দেখাবে যদি থাকে। SIM এর উপর ক্লিক করলে দুইটি সিম থাকলে একটা বন্ধ করার অপশন পাবেন। Enable লেখা থাকে এখানে ক্লিক করলে সিম অফ হয়ে যায় । নিচের দিকে সিমের নাম দেওয়া যায় ।

এছাড়া ফোনের নেটওয়ার্ক টাইপ দেখা যায় ।(খ)GENERAL SETTINGS  এখান থেকে ডাটা রোমিং অন করার উপায় পাবেন (গ) DEFAULT SIM SETTINGS  এখান থেকে কল করার সিস্টেম জানতে পারবেন । সিম সিলেক্ট করে রাখা যাবে ।

যেকোনো একটা অথবা always ask করে রাখলে কল দেওয়া সময় কোন সিম দিয়ে কল দেওয়া লাগবে তা জনতে চাইবে । ইন্টারনেটের ক্ষেত্রে একই কোন সিমে ইন্টারনেত চলবে তা এখান থেকে সিলেক্ট করা যাবে ।

৩) Wi-Fi

এই অপশন দিয়ে আপনার ফোনে ওয়েইফাই কানেক্ট দিতে পারবনে পাসওয়ার্ড দিয়ে  । এছাড়া স্ক্যান করেও ওয়াইফাই কানেক্ট করা যায় ।

৪) Bluetooth

ব্লুটুথ দিয়ে ফোন থেকে ফোন বা অন্য ডিভাইসের মধ্যে সংযোগ দেওয়া যায়। তবে রিয়েলমি ফোনের ব্লুটুথ অনেক ফাস্ট ।

৫) Connection & Sharing

এই ফাংশনে ক্লিক করলে আপনার ফোনের হটস্পট শেয়ার  করতে হয় সেই অপশন পাবেন । ওয়্যারলেস ট্রন্সপোট, প্রিন্ট, ভিপিএন, প্রাইভেট ডিএনএস , অ্যান্ড্রয়েড অটো, সম্পর্কে জানতে পারবেন।

৬) Personalizations রিয়েলমি ফোনের সেটিং

(ক)Theme: এই সেটিং এ আপনি প্রথমে ফোনের জন্য অনেক সুন্দর থিম ব্যবহার করতে পারবেন। (খ)Wallpapers: তার পর আছে ওয়ালপেপার । কিছু আছে ফোনের সাথে থাকে আর কিছু লাইভ ওয়াল পেপার । ইন্টাননেট অন করে আপনি নিজের ইচ্ছামত ওয়ালপেপার ডাউনলোড করতে পারবেন ।

(গ) Icon styles: এর মাধ্যমে আপনার ফোনের আইকনগুলো কেমন হবে । মানে ইন্সটল করা অ্যাপগুলো দেখতে কেমন দেখাবে তা দেখা যাবে । (ঘ) App layout:  আপনি এখানে পাবেন Colunms এবং Raws কতগুলো করে অ্যাপস থাকবে সেগুলো জানা যাবে । ৫ অথবা ৪ টা আপনার ইচ্ছামত অ্যাপ রাখতে পারবেন এক সারিতে ।

(ঙ)Colors: এখান থেকে বিভিন্ন প্রকার কালার দিতে পারবেন । (চ)Font & Display size: আপনার ফোনে যদি ইন্টারনেট কানেকশন থাকে তাহলে  In Use এখানে ক্লিক করলে ইচ্ছামত ফন্ট মোবাইলে ইন্সটল দিতে পারবেন।

ফন্ট মানে ফোনের লেখাগুলো কেমন হবে লেখা কেমন দেখাবে । (ছ)Notificartion drawer: আপনার যে নোটিফিকেশন গুলো আছে সেগুলো কেমন দেখাবে তার নমুনা এখান থেকে পাবেন।

৭) Home screen & Lock screen

এখানের সব ফাংশন গুরুত্বপূর্ণ নয়  । তাই সব না দেখিয়ে গুরুত্বপূর্ণ ফাংশন দেখানো হলো । (ক)App animation speed: এইটাই কাজ হলো আপনার ফোনের অ্যাপগুলো কত তাড়াতাড়ি এনিমেটেড হয়ে অন হবে ফাস্ট না স্লো হয়ে ।

(খ)Double-tap to lock: এই ফাংশনটা অন রাখলে ফোনের স্কিনের উপর দুই বার পরপর ক্লিক করল ফোন লক হয়ে যাবে । (গ)Double tap to turn screen on: এই ফাংশনের কাজ হলে । স্কিনের উপর দুইবার পর ক্লিক করলে ফোনের স্কিনে আলো জ্বলে উঠবে ।

৮) Display & brightness

(ক)প্রথমে আপনি ফোনের সকল জায়গায় চাইলে ডার্ক করে দিতে পারবেন। ডান পাশের Dark  নামের যে অপশন আছে সেখানে ক্লিক করতে হবে । (খ) তারপর আছে আলো বাড়ানো ও কমানোর অপশন আপনার ইচ্ছামত আলো কমাতে ও বাড়াতে পারেন । Auto brightness দিলে যেখানে যেমন সেখানে নিয়ে নিবে (গ)

Eye comfort এইটা অন করে লাগলে মোবাইলের দিকে তাকালেও চোখে তেমন কোনো সমস্যা দেখা দেওয়া কমে যায় । (ঘ)Auto rotate: অন করে রাখবে ফোনের স্কিন ঘুরতে থাকবে যে দিকে ফোন ঘোরাবেন । (ঙ)Auto screen off: এইটা থেকে কত সময় থেকে ফোনের আলো নিভে যাবে সেই সময় দেওয়া যায় ।

৯) Sound & vibration

 এখান থেকে আপনার ফোনের যত সাউন্ড সিস্টম আছে তার সবগুলো আপনি সেটিং করতে পারবেন । যেমনঃ মিডিয়া, রিংটন, নোটিফিকেশন, অ্যালার্ম এই সবের ফাংশন ।

১০) Notification & status bar

আপনার ফোনের যতপ্রকার নোটিফিকেশন আছে তার সব কিছু এখান থেকে কন্ট্রোল করতে পারবেন । যেমন, Display data usage in notification drawer, Pull down on lock screen to access notification drawer, Time, Show battery percentage on status bar, Real-time network speed, notification icons, status icons, Media playback control এই সবের আপনি নোটিফিকেশন এখান থেকে কন্ট্রোল করতে পারবেন।

১১)Password & biometrics

পাসওয়ার্ড বা যেকোনো ধরনের লক এই ফাংশনের মধ্যে পাওয়া যাবে । যেমনঃ Lock screen password, Set privacy password.Add fingerprint, Add face, App lock, private safe, kid space,  এই সকল কাজ করতে পারবেন ।

১২) Privacy:

ফোনের যতপ্রকার প্রাইভেসি সংক্রান্ত ফাংশন আছে তার সবগুলো পেয়ে যাবেন এই অপশনে ।যেমনঃ Permission manager, app lock, hide apps, private safe, kid space, device ID & ads, notifications on lock screen, show password, Join User Experience Program, Experience improvement programs, । এছাড়া পেমেন্ট প্রটেকশন পাবেন, গুগল পেতে ।

আরও পড়ুনঃ স্মার্টফোন চার্জিং টিপস যা আপনার জানা দরকার

রিয়েলমি ফোনের সেটিং ২য় পার্ট পড়ার আমন্ত্রণ জানিয়ে এখানে শেষ করছি। ধন্যবাদ ।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on pinterest
Pinterest
Share on telegram
Telegram

আমাদের সাথে সোশ্যাল মিডিয়াতে থাকতে

আমাদের ফেসবুক পেজ এই লিংকে ক্লিক করুন

আমাদের সাথে গুগল নিউজে থাকার জন্য ফলো করুন এই লিংককে ক্লিক করুন

ফেসবুক গ্রুপে আপনার যেকোনো প্রশ্ন/মতামত এই লিংকে ক্লিক করুন

আমাদের সাথে টুইটারে থাকেতে এই লিংকে ক্লিক করুন

আমাদের সাথে পিন্টারেস্টে থাকতে এই লিংকে ক্লিক করুন

সব কিছু একই সাথে পেতে  https://techzoombd.com

1 thought on “রিয়েলমি ফোনের সেটিং সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিন পার্ট(১)”

  1. Hello there! I simply want to offer you a huge thumbs up for the great information you have here on this post. I will be coming back to your web site for more soon.

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Latest Post

আরও অন্য বিষয়ে পড়ুন

x