Techzoombd

ব্লুটুথ কি? ব্লুটুথ এর বৈশিষ্ট, সুবিধা ও ব্যবহার

ব্লুটুথ

ব্লুটুথা এক সময় মানুষের মোবাইল থেকে মোবাইলে ওয়্যারলেস ফাইল শেয়ারিং এর একমত্র উপায় ছিল। ব্লুটুথ ব্যবহার করে মানুষ বিভিন্ন ধরনের ফাইল আদান প্রদান করত ।

তবে Bluetooth এখনও ব্যবহার হয়ে থাকে সেটা ফাইল নেওয়ার কাজ হিসেবে খুব কম । Bluetooth এখন ডিভাইস থেকে ডিভাইসে ওয়ারলেস কানেক্ট করার জন্য ব্যবহার করা হয় যেমনঃ হেটফোন থেকে মোবাইলে কানেক্ট ।

এখন Bluetooth থেকে আরও অনেক বেশি উন্নত প্রযুক্তি আবিষ্কার হয়েছে সেগুলো মানুষ ব্যবহার করে থাকে । তাই আজকে আমরা জানব ব্লুটুথ কি? ব্লুটুথ এর বৈশিষ্ট, সুবিধা ও অসুবিধা এর সব কিছু সাথেই থাকুন।

ব্লুটুথ সম্পর্কে কয়েকটি কথাঃ

Bluetooth এর   আবিষ্কারক ড.জ্যপ হার্টসেন ১৯৯০ সালে । ৯০০ খ্রীস্টাব্দের পরের সময়ের ডেনমার্কের রাজার নাম অনুশারে নাম করণ করা হয় ।  Bluetooth সাধারণত (১-১০০) মিটার পর্যন্ত কাজ করে থাকে তবে ১০ মিটারের মধ্যে বেশি কাজ করে থাকে ।

বিদ্যুৎ কোষের কারণে অনেক সময় দেখা যায় ওয়্যারলেসে ৫০০ মিটার পর্যন্ত কাজ করে থাকে । Bluetooth ২.৪৫      গিগাহার্টাজ এ কাজ করে থাকে ।  Bluetooth 1.0  তথ্যের আদান-প্রদান করা যায় সর্বোচ্চ গতি হয়ে থাকে ১ মেগাবিট পর্যন্ত । তবে বর্তমান সংস্করণে Bluetooth  এর  গতি ২ মেগাবিট পর্যন্ত হয়ে থাকে ।

Bluetooth এর সাধারণ কিছু বৈশিষ্ট্যঃ

১) এটা সাধারণত ১-১০০ মিটারের মধ্যে বেশি কাজ করে থাকে তবে ১০ মিটারের মধ্যে বেশি কাজ করে থাকে ।

২) এটি ২.৪৫ গিগাহার্টজ ফ্রিকুয়েন্সি ব্যান্ড ।

৩) সাধারণ ফোন ল্যাপটপ পিডিএ বা বিভিন্ন ধরণের ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইসে ব্যবহার করা যায় ।

৪) Bluetooth  স্বয়ংক্রিয়ভাবে কনফিগার করতে পারে । এখানে কোনো কনফিগার করার প্রয়োজন হয় না ।

৫) এটা একটা ওয়্যারলেস ব্যবস্থা ।

৬) আপনার ব্যবহারকারীর মধ্যে আপনি নিয়ন্ত্রনের জন্য পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে পারেন ।

৭) ডিভাইস যত কাছে থাকে তত বেশি কাজ করতে সুবিধা হয় । যোগাযোগের জন্য রেডিও ওয়েব ব্যবহার করে থাকে ।

ব্লুটুথের সুবিধাসমূহঃ

১) আপনি চাইলেই কোনো প্রকার খরচ ছাড়ায় ব্লুটুথ দিয়ে বিভিন্ন প্রকার ফাইল আদান প্রদান করতে পারেন ।

২ আমাদের হাতের কাছে সকল প্রকার ফোনে বা ল্যাপটপে বা বিভিন্ন প্রকার ডিভাইসে এখন Bluetooth  পাওয়া যায় ।

৩)তেমন কোনো বিদ্যুৎ এর খরচ হয় না ।

৪) একাধিক ডিভাইসে একই সাথে যোগাযোগ রক্ষা করা যায় ।

Bluetooth এর ব্যবহার

১) বিভিন্ন প্রকার স্কানার ট্রাফিক কন্ট্রোলার ডিভাইসের ব্লুটুথের ব্যবহার করা যায় ।

২) এখন বিভিন্ন প্রকার হেটফোন, সাউন্ড বক্স, খেলনা Bluetooth  সংযোগ পাওয়া যায় ।

৩) হেলথের বিভিন্ন অপারেশন এর জন্য জায়গা নিধারণ করার জন্য ব্লুটুথ ব্যবহার করা হয়ে থাকে

সর্বশেষ একটা কথা বলা যায় যে, ব্লুটুথের এখনও বহুমূখী ব্যবহার আছে । প্রযুক্তির অনেক উন্নতির এই যুগে এর ব্যবহার একেবারে কম নয় ।

আরও পড়ুনঃ WiFi কি ? কিভাবে কাজ করে ? WiFi ওর সুবিধা অসুবিধা

আপনি আরও বেশি নতুন কিছু পেতে পারেন আমাদের ফেসবুক পেজে লিংক

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on pinterest
Pinterest
Share on telegram
Telegram

আমাদের সাথে সোশ্যাল মিডিয়াতে থাকতে

আমাদের ফেসবুক পেজ এই লিংকে ক্লিক করুন

আমাদের সাথে গুগল নিউজে থাকার জন্য ফলো করুন এই লিংককে ক্লিক করুন

ফেসবুক গ্রুপে আপনার যেকোনো প্রশ্ন/মতামত এই লিংকে ক্লিক করুন

আমাদের সাথে টুইটারে থাকেতে এই লিংকে ক্লিক করুন

আমাদের সাথে পিন্টারেস্টে থাকতে এই লিংকে ক্লিক করুন

সব কিছু একই সাথে পেতে  https://techzoombd.com

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Latest Post

আরও অন্য বিষয়ে পড়ুন

x